• Mon. Nov 28th, 2022

যশ সকালবেলা ইনস্টাগ্রাম খুলে সুন্দরী মেয়েদের দেখেন!

যশ দাশগুপ্ত এবং মধুমিতা সরকার অভিনীত তানভির ইভানের গাওয়া ‘ও মন রে’ গানের ভিডিয়ো গত রবিবার মুক্তি পেয়েছে। তিন দিনেই ২০ লক্ষ মানুষ সেই ভিডিয়ো দেখে ফেলেছেন ইতিমধ্যেই। শুধু তাই নয়, ইউটিউবের ট্রেন্ডিংয়ের তালিকায় শীর্ষে জায়গা করে নিয়েছে ‘ও মন রে’।

রবিবার ‘শ্রী ভেঙ্কটেশ ফিল্মস’ প্রযোজিত সেই ভিডিয়োর সাংবাদিক সম্মেলনে মুখোমুখি হলেন যশ-মধুমিতা। ‘বোঝে না সে বোঝে না’ ধারাবাহিকে যশমিতার জুটি নিয়ে মাতামাতি ছিল দর্শকের আর সেই জুটিই পাঁচ বছর বাদে আবার একসাথে। শোনা গিয়েছিল, তাঁদের দু\’জনের সম্পর্কে নাকি ছেদ পড়েছে, কিন্তু সেই প্রশ্নের জবাবে মধুমিতা এবং যশ, দু’জনেই জানালেন, কোনো দিনও তাঁদের সম্পর্ক নষ্ট হয়নি। কিন্তু এই পাঁচ বছরে একাধিকবার একসঙ্গে কাজ করার কথা উঠলেও ভাল চিত্রনাট্য পাননি তাঁরা। আগামীতে ভাল চিত্রনাট্য পেলে অবশ্যই কাজ করবেন তাঁরা।

নেটমাধ্যমে ব্যঙ্গ-বিদ্রুপ এবং আক্রমণের বিরুদ্ধে সরব হলেন যশ। তাঁর বক্তব্য, সমালোচনা ভাল জিনিস কিন্তু মাঝে মধ্যেই সমালোচনা তার সীমা পেরিয়ে আক্রমণে পরিণত হয়। তিনি জানান যে, যতক্ষণ পর্যন্ত ঠাট্টা, মশকরা হিসেবে ট্রোল করা হয়, তাঁদেরও ভাল লাগে। এমনকি টলিউডের শিল্পীদের মধ্যে এরকম বিভিন্ন হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ রয়েছে, সেখানে হাসাহাসি হয় এই সমস্ত কিছু নিয়ে। কিন্তু মানুষের ব্যাপারে কুৎসা রটানোর প্রবণতাকে মেনে নেওয়া যায় না, তবে যাঁরা ট্রোল করেন, তাঁরাও যাকে তাকে ট্রোল করেন না। সেই জায়গায় পৌঁছতে হবে ট্রোলড হওয়ার জন্য। মধুমিতা সেই বক্তব্যে সায় দিয়ে বলছেন, যদি তাঁকে নিয়ে কথাই না হয়, তা হলে মনে প্রশ্ন জাগবে, কেন, কী হল, ইত্যাদি। কিন্তু অপমানজনক কিছু বললে, সেটা মেনে নেওয়া কঠিন। ছোট পোশাক নিয়ে কুমন্তব্য করলে তিনি আরও বেশি করে ছোট পোশাক পরে শ্যুট করবেন এও জানালেন মধুমিতা।

তবে প্রশ্ন এখন, পুরুষদের তুলনায় মহিলারা কি কটাক্ষের শিকার বেশি হন? উত্তরে যশ জানান, কারও ব্যক্তিগত পরিসরে প্রবেশ করা উচিত নয়। তা সে মহিলাই হোক বা পুরুষ। তিনি মনে করেন, নেটমাধ্যম কিন্তু আসলে মহিলাদেরই প্ল্যাটফর্ম। অনেকেই বলেন, টেলিভিশনও নাকি মহিলাদের প্ল্যাটফর্ম। যশ মনে করেন, নেটমাধ্যমে অনুগামীর সংখ্যার নিরিখে পুরুষদের থেকে মহিলারাই অনেক এগিয়ে। তিনি এও বললেন, ‘প্রকাশ্যেই বলছি, সকাল বেলা উঠে ইনস্টাগ্রাম খুলে সুন্দর সুন্দর মুখ দেখতে ভাল লাগে আমার। মহিলারা সাধারণত খুবই সুন্দর।’ ফলে, তাঁর মতে যাঁর অনুগামীর সংখ্যা বেশি, তাঁকে নিয়ে কথাও তত বেশি হবে।