• Mon. Dec 5th, 2022

‘ধুলোকণা’ নিয়ে কোন অভিজ্ঞতা শেয়ার করলেন অনিন্দিতা?

জনপ্রিয় ধারাবাহিক ধুলোকণাতে একদিকে সাবিত্রী চট্টোপাধ্যায় এবং অন্যদিকে রত্না ঘোষাল, এই দুই প্রবাদপ্রতিম শিল্পীর মাঝে বসে অভিনেত্রী অনিন্দিতা রায়চৌধুরি। এই দুই বর্ষীয়ান অভিনেত্রীর সঙ্গে কাজ করার সুযোগ পেয়ে খুবই খুশি অনিন্দিতা রায়চৌধুরি। প্রতিটা মুহূর্তে তাঁদের দেখে অভিনয় শিখছেন তিনি। এটা তাঁর জীবনের একটা পাঠ।

বৃহস্পতিবার সকালে সেট থেকে একটি ছবি শেয়ার করে তার ক্যাপশনে অনিন্দিতা লিখেছেন, ‘আগের দিনে একটা তো নয় করত পুরুষ দশটা বিয়ে, গায়ের জোরে দাসী করে পা টেপাতো বৌকে দিয়ে। সেদিন গেছে আজকে নারী আগের মত নেইতো বোকা! তাদের নিয়ে বন্দী করে এখনও কি দেবে ধোঁকা? আহা শেষ হয়েছে নারীদের সেই শাসন-ঘানি টানা এবার নিজেই খুঁজে দেখুন কোথায় পাগলাগারদখানা।‘ গত ১০ বছর ধরে টেলিভিশন ইন্ডাস্ট্রিতে কাজ করছেন অনিন্দিতা। অবশ্য কেরিয়ার শুরু করেছিলেন ক্যামেরার নেপথ্যে। তবে এখন তিনি অভিনেত্রী। বাংলা টেলিভিশনের জনপ্রিয় ধারাবাহিক ‘ধুলোকণা’য় অভিনয় করছেন তিনি।

এই ধারাবাহিকের ‘চান্দ্রেয়ী’ চরিত্রটি পুরোপুরি নেগেটিভ একটি চরিত্র। এই ধারাবাহিকেই কিংবদন্তী সাবিত্রী চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে কাজের সুযোগ পেয়েছেন তিনি। সেই নিয়ে অনিন্দিতা জানান যে, সাবিত্রী চট্টোপাধ্যায়কে দেখলেই তাঁর মনে পড়ে, ‘ধন্যি মেয়ে’, ‘মৌচাক’, ‘মরুতীর্থ হিংলাজ’, যে জীবনটা সাদা কালো পর্দায় দেখেছেন তিনি, সেটাতে উনি ছিলেন। তাঁর মতে সাবিত্রী চট্টোপাধ্যায় ভয়ঙ্কর অভিনেত্রী। একসঙ্গে স্ক্রিন শেয়ার করলে তিনি নাকি ভয়ে থাকেন। সারাক্ষণ মজা করেন আর ফ্লোর মাতিয়ে রাখেন। তাঁর বয়স নিয়ে কেউ কিছু বলতে পারবেন না কারণ নিজেদেরই লজ্জা করে। তাঁর মতে তিনি যে এনার্জি দেখান, তাঁর তো মনে হয়, তিনি নিজে এই বয়সে পৌঁছবেন না।