• Thu. Sep 23rd, 2021

বর্ণবিদ্বেষের শিকার হয়েছেন অভিনেত্রী-মডেল এষা গুপ্ত

ভারতে বর্ণবিদ্বেষমূলক ঘটনা নতুন না। কখনও রঙ কালো হওয়ায় বিয়েতে প্রত্যাখ্যাত হচ্ছেন কোনও মহিলা, আবার কখনও অপমানজনক মন্তব্যের শিকার হতে হচ্ছে কাউকে, এসব লেগেই আছে। বিশেষত ফিল্ম ও মডেলিংয়ের জগতে বহু দিন ধরেই এমন সমস্যার শিকার হয়ে এসেছেন বহু কলাকুশলীরা। সম্প্রতি তেমন এক অভিজ্ঞতার কথা জানালেন অভিনেত্রী এষা গুপ্ত।

অভিনেত্রী এষা প্রথম বলিউডে আত্মপ্রকাশ করেন ইমরান হাসমির বিপরীতে, ‘জন্নত ২’ ছবিতে। তারপর বহুবার নিজের সাজ-পোশাক এবং রূপটানের জন্য মাঝেমাঝেই শিরোনামে উঠে এসেছেন তিনি। কিন্তু এই ইন্ডাস্ট্রিতে জায়গা করে নেওয়া একদমই সহজ ছিল না তাঁর জন্য, বিশেষত নিজের গায়ের রঙের জন্য তা তো বটেই। গায়ের রঙ সামান্য চাপা হওয়ায় প্রথম থেকেই আলাদা করে রাখা হয়েছিল তাঁকে। তাঁর অপরিচিত সহকর্মী অভিনেতারাও নাকি তাঁকে উপদেশ দিতেন ফর্সা হওয়ার জন্য। একটি সাক্ষাৎকারে এষা জানান যে এমন এক সময় ছিল যখন তাঁর রূপটান শিল্পীরাও চেষ্টা করতেন তাঁর কালো রঙ ঢাকা দিতে। ‘সেক্সি’ বা লাস্যময়ী হিসেবে সহজেই তাঁকে দেগে দেওয়া হয়েছিল যেহেতু তাঁর গায়ের রং কালো বলে।

তিনি আরও জানান, কিছু মেকআপ আর্টিস্টও ছিল যারা তাঁকে সব সময় ফর্সা করতে চেষ্টা করত, এবং এর ফলে তাঁর গোটা শরীরকেই আলাদা করে রং করতে হত, কারণ মুখের রঙ আর গায়ের রঙ মিলত না। কালো হওয়ার জন্য তিনি আবার একই সঙ্গে যৌন আবেদনময়ীও কারণ, তাঁর কথায়, আমাদের এই দেশে ফর্সা মানেই পাশের বাড়ির মেয়ে এবং সে সৎ, আর কালো মানেই খারাপ বা লাস্যময়ী।